নুরুজ্জামান 'লিটন' - (Naogaon)
প্রকাশ ১০/০৪/২০২২ ১১:০১পি এম

নওগাঁয় মধ্যযুগীয় কায়দায় স্ত্রী নির্যাতনের ঘটনায় দু'জন গ্রেফতার

নওগাঁয় মধ্যযুগীয় কায়দায় স্ত্রী নির্যাতনের ঘটনায় দু'জন গ্রেফতার
ad image
নওগাঁ জেলার মান্দায় যৌতুকের জন্য মধ্যযুগীয় কায়দায় স্ত্রীকে নির্যাতনের ভিডিয়ো ভাইরালের পর উক্ত মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
আজ ১০ এপ্রিল রবিবার তাদের আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
ঘটনা সূত্রে জানা গেছে,নওগাঁ সদর উপজেলার কীর্তিপুর ইউনিয়নের জালম গ্রামের বসবাসরত মর্জিনার মেয়ে ববিতা বানুর প্রায় এক বছর আগে বিয়ে হয় নওগাঁর মান্দা উপজেলার গণেশপুর ইউনিয়নের সতিহাটের শামীম উদ্দীন মোল্লার ছেলে জাহিদ আলির সাথে। ববিতা বানুর বাবা গরিব হওয়ায় যৌতুকের কিছু টাকা বাকী রাখেন। এটাই বাধে বিপত্তি শুরু হয় নির্যাতন।

সর্বশেষ গত বুধবার (০৬ এপ্রিল) হতে পরদিন দুপুর ২ টা পর্যন্ত ১ লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবি করে মারপিট শুরু করে জাহিদ তার মা-বাবার প্ররোচনায়। যৌতুক পরিশোধ করতে না পারায় বিয়ের পর অধিকাংশ সময় তাকে বাপের বাড়ীতেই থাকতে হয়েছে। সর্বশেষ ৩০ হাজার টাকা যৌতুক দিয়ে স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার উপর চালানো হয় অমানুষিক নির্যাতন ও মধ্যযুগীয় কায়দায় পৈশাচিক নির্যাতন। সেই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।
এ-র পর নড়ে চড়ে বসে প্রশাসন। মেয়েটি নওগাঁ সদর হসপিটালে জরুরি বিভাগে ভর্তি আছেন।

আজ রবিবার (১০ এপ্রিল) মান্দা থানা পুলিশ নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় ০২নং আসামি নরপিশাচ স্বামী জাহিদের মা হাজেরা বেগম (৫৫) ও ৩নং আসামি জাহিদের বাবা শামীম মোল্লাকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মান্দা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, মামলার ২ ও ৩ নম্বর আসামি শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। ১ নম্বর আসামী জাহিদ মোল্লা পলাতক রয়েছে। আমরা তাকে গ্রেফতার করার চেষ্টা করছি।শীঘ্রই তাকে আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ