Motior Rahman Sumon - (Mymensingh)
প্রকাশ ২৭/০২/২০২২ ০৪:০০পি এম

বিশিষ্ট কবি মান্নান ফরিদী

বিশিষ্ট কবি মান্নান ফরিদী
ad image
দক্ষ সংগঠক, কবি ও লেখক মান্নান ফরিদী কবি মান্নান ফরিদীর পিতৃ প্রদত্ত নাম- মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান এবং ডাক নাম খোকা/খোকা মিয়া। তিনি কবি মান্নান ফরিদী খোকা নামে অধিক সমাহিত। প্রথম বই প্রকাশের পর আব্দুল মান্নান খোকা নামের খোকা অংশটুকু নিয়ে লেখক মহলে আপত্তি ওঠে। বিশেষকরে কবি নির্মলেন্দু গুণ, কবি আল মুজাহিদ, কবি আল মাহমুদ নাম পরিবর্তনের পক্ষে অবস্থান নিয়ে নামের আগে অথবা পরে বংশ পদবী 'শেখ' যুক্ত করতে পরামর্শ দেন। অবশেষে কবি সমরেশ দেবনাথের পরামর্শে 'মান্নান ফরিদী' নাম ধারণ করেন। ফরিদী কেন/কিভাবে যুক্ত হল তা আজও অজানা, তবে ধারণা করা হয় দাদার নাম শেখ ফরিদ থেকে ফরিদী যুক্ত হতে পারে।

কবি মান্নান ফরিদী ২৪ মার্চ, ১৯৫৮ সালে গফরগাঁওয়ের মাইজহাটী গ্রামে, পিত্রালয়ে রোজ শনিবার, সকাল ১০ ঘটিকায় জন্মগ্রহণ করেন। পিতা মরহুম আব্দুল কুদ্দুছ উসমান, মাতা মরহুমা হাজেরা খাতুন। কবি ছয় ভাই-বোনের মধ্যে পঞ্চম।

কবি মান্নান ফরিদীর শৈশবকাল কাটে গ্রামের বাড়িতেই। মায়ের কাছে লেখা-পড়ার হাতেখড়ি। প্রথমে দৌলতপুর প্রাইমারি স্কুলে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি হন তারপর নিজ গ্রামে মাইজহাটি প্রাইমারী স্কুল প্রতিষ্ঠিত হলে সেখানে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি হন। তৃতীয় শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়ার পর দেশে স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হয়। দেশ স্বাধীনের পর পূর্বের দৌলতপুর স্কুলে চতুর্থ শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে পঞ্চম শ্রেণি পাস করেন। পরর্বতীতে পুনরায় ধলা হাইস্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং ১৯৭৪ সালে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করেন।

১৯৮১ সালে ধলা হাইস্কুল, ত্রিশাল, ময়মনসিংহ থেকে এসএসসি পাশ করেন। গফরগাঁও ডিগ্রি কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তি হন এবং রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ১৯৮৪ সালে গফরগাঁও ডিগ্রি কলেজ থেকে বিজ্ঞানে এইচএসসি সম্পন্ন করেন। বিজ্ঞানে পাশ করে উদ্ভিদ বিজ্ঞানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ হয় কিন্তু মায়ের আপত্তি থাকায় বন্ধুদের পরামর্শে আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে বাংলায় অনার্সে ভর্তি হন। এবং এখান থেকেই বাংলা সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন যথাক্রমে ১৯৮৮ ও ১৯৮৯ সালে।

স্নাতকোত্তরে আশাতীত ফল না হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মানোন্নয়ন পরীক্ষায় বাংলা সাহিত্যে দ্বিতীয় শ্রেণিতে ১৯৯০ সালে এম. এ. পাশ করেন। ১৯৯৪ সালে মোমেনশাহী ল কলেজে এল. এল. বি (প্রিলি) সম্পন্ন করেন। যদিও এল. এল. বি ফাইনাল অনুত্তীর্ণ থেকে যান। ১৯৯৩ সালে কম্পিউটার বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। ১৯৯৮ সালে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন করেন।

কর্মজীবনের শুরুতে ফারহানা ট্রেডার্স, ১৫০, মতিঝিল বা/এ, ঢাকায় কমার্শিয়াল ম্যানেজার হিসেবে যুক্ত ছিলেন ১৯৯১-১৯৯৩ সময়ে। ১৯৯৩- ১৯৯৪ সালে হুরমত উল্লাহ কলেজ, শিবগঞ্জ, গফরগাঁওয়ে বাংলার প্রভাষক হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। ১৯৯৪-২০০১ সাল পর্যন্ত প্রভাষক ও বিভাগীয় প্রধান (বাংলা) হিসেবে কর্মরত ছিলেন বি. কে. বি. কলেজ, ময়মনসিংহে। ২০০১ সাল হোন বি. কে. বি. কলেজের অধ্যক্ষ। ২০০৪ সাল পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করেন।

অবসর জীবনে ২০০৪-২০০৬ সালে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে পুনরায় হুরমত উল্লাহ কলেজে শিক্ষকতা করেন। শিক্ষকতার জীবনে পরীক্ষক, নিরীক্ষক, প্রশিক্ষক, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেছেন।বর্তমানে লেখালিখির পাশাপাশি দুশা এন্টারপ্রাইজ, বাকৃবি ক্যাম্পাস, ময়মনসিংহে ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে কর্মরত।

মান্নান ফরিদী খোকার প্রথমগ্রন্থ 'কথা ছিলো কথা রাখো ' ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত হয়।
প্রকাশিত অন্যান্য গ্রন্থসমূহ-

কবিতায় খুঁজে পাই তোমাকে (কাব্য)-২০০৮
একগুচ্ছ রোমান্টি কবিতা (কবিতাপত্র)-২০০৭
একমুঠো প্রেমালাপ (কবিতাপত্র) -২০০৮
চুমকির এক চিলতে হাসি-উপন্যাস (২০০৯)
মেঘ ফাটা রোদ- গল্পগ্রন্থ (২০০৯)
এক মুঠো ভাত চাই (কাব্য)-২০০৯
আজ আর নাই বললাম (কাব্য)-২০১৬
পোস্ট মাস্টারের চিঠি -গল্পগ্রন্থ।
"কাল যখন আকাশে ফুটবে তারা"-(কবির ৫ম কাব্যগ্রন্থ, নবান্ন প্রকাশনী, ঢাকা থেকে ২০২২)

কম্পিউটার বিষয়ক- দুটি গাইড বই প্রকাশ করেন। প্রকাশের অপেক্ষায় আছে ৮ টি গ্রন্থ।

এছাড়া বিভিন্ন সাহিত্যপত্র, সংকলন, বিভিন্ন সাহিত্য সংগঠনের মুখপত্র, দেয়াল পত্রিকা ইত্যাদিসহ অসংখ্য গ্রন্থের সম্পাদনা করেছেন কবি মান্নান ফরিদী।
দুশা প্রকাশনী, ডাহুক পাব্লিকেশন, পউস প্রকাশনী প্রতিষ্ঠানের প্রকাশক হিসেবে প্রকাশ করেছেন বেশ কিছু বই।
তিনি একজন দক্ষ সংগঠক, সুনাম আছে উপস্থাপক হিসেবেও।

তিনি ছিলেন গফরগাঁও কলেজের ছাত্র সংসদের নির্বাচিত সাহিত্য সম্পাদক। আহবায়ক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, আনন্দমোহন কলেজ হল সংসদ, ময়মনসিংহ (১৯৮৬-৯০); কো-চেয়ারম্যান, কবিদের মহাসম্মেলন উদযাপন পরিষদ ২০০৯, বিশ্ব কবিতা পরিষদ, ঢাকা; কো-চেয়ারম্যান, রবীন্দ্র-নজরুল জন্ম-জয়ন্তী উদযাপন পরিষদ ২০০৯, ঢাকা।সাহিত্য সম্পাদক- তটনি খেলাঘর, গফরগাঁও; ইত্যাদিসহ আগের ও বর্তমানের বহু সাহিত্য-সাংস্কৃতিক-সামাজিক-রাজনৈতিক সংগঠনের কোনটির উপদেষ্টা, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, কোনটির সভাপতি, সহ-সভাপতি, কোনটির সা. সম্পাদক, সহ-সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক, আহবায়ক, কার্যকরী সদস্য ইত্যাদি হিসেবে যুক্ত আছেন।

কবি মান্নান ফরিদীর সফলতা কামনা করি।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ