Md Sahabuddin Sayef - (Chattogram)
প্রকাশ ২২/০২/২০২২ ১২:১৬পি এম

প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যা করে আত্মগোপন, ছয়বছর পর আটক

প্রবাসীর স্ত্রীকে হত্যা করে আত্মগোপন, ছয়বছর পর আটক
ad image
চট্টগ্রামে প্রবাসী নূরুল আলমের স্ত্রী পারভিন আক্তার (৩৬)কে শ্লীলতাহানি করে হত্যা ও ডাকাতির অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী ইসহাক(২৭) ছয় বছর আত্মগোপনের পর অবশেষে র‌্যাবের হাতে আটক।

সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৬টার দিকে চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার সুলতানপুর এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম এর একটি আভিযানিক দল অভিযান পরিচালনা করে তাকে আটক করে। গ্রেফতারকৃত ইসহাক চট্টগ্রামের হাটহাজারী পৌরসভার ফটিকা এলাকার কামাল হোসেনে পুত্র বলে জানাগেছে।

র‌্যাব সূত্রে জানাযায়, প্রবাসী নূরুল আলম ও তার আপন ভাই আব্দুস শুক্কুরের যৌথ মালিকানাধীন নগরীর রৌফাবাদ এলাকার ছয় তলা বিশিষ্ট একটি ভবনে দারোয়ান হিসেবে নিয়োজিত ছিলো মামলার প্রধান আসামী ইয়াসিন। আর সেই সুবাদে ইয়াসিনকে আবুধাবি নিয়ে যায় আব্দুস শুক্কুর। পরে তাদের মনমালিন্য হলে ইয়াসিন দেশে চলে আসে। বিষয়টি নিয়ে ইয়াসিনের মাথায় প্রতিশোধের আগুন জ্বলতে থেকে। আর সেই প্রতিশোধ নিতে তার বন্ধু মনসুরের সাথে পরিকল্পনা করে গত ১৬ সালের ৫ই মার্চ রাত ১০টার দিকে তার আরো দুই সহযোগী আবু তৈয়ব রানা(২৪) ও মোঃ ইসহাক(২৭)কে সাথে নিয়ে পারভিনের ঘরে ঢুকে প্রথমে আলমারির চাবি দিতে বলে, চাবি দিতে রাজি না হয়ে চিৎকার করার চেষ্টা করলে পারভিনের মুখ চেপে ধরে খাটিয়া হতে ফ্লোরে ফেলে দেয় এবং তার হাত ও পা শাড়ির কাপড় দিয়ে বেঁধে রাখে। তারপর স্বর্ণালংকার, মোবাইল সেট ও নগদ টাকা নিয়ে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় পারভিনের পরিহিত শাড়ি খুলে গলায় ফাঁস ও মাথায় আঘাত করে চলে যায়। পরে পারভিনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

এবিষয়ে র‌্যাবের সিনিয়র সহকারী পরিচালক নূরুল আবছার বলেন, পারভিন আক্তার হত্যার ঘটনায় তার স্বামী প্রবাসী নুরুল আলম বাদী হয়ে বায়েজিদ বোস্তামী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত ইয়াসিন, মনসুর ও আবু তৈয়ব রানার উপস্থিতিতে গ্রেফতারকৃত আসামী ইসহাকসহ চার জনের মৃত্যুদণ্ড রায় ঘোষণা করেন। এদিকে ঘটনার পর থেকে ইসহাক বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন করে থাকে। তাকে গ্রেফতার করতে গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রাখে র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম। এক পর্যায়ে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে রাউজানের সুলতানপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে, সে পারভিন আক্তার হত্যাকাণ্ডের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত ছিলো।

গ্রেফতারকৃত আসামী সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ