prodip kumar goshwami - (Rangpur)
প্রকাশ ০৭/০২/২০২২ ০২:২১পি এম

মিঠাপুকুরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন

মিঠাপুকুরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন
ad image
সপ্তম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মিঠাপুকুর উপজেলার ১৭ টি ইউনিয়নে দু একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তি পূর্ণ ও উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ১৭২ টি কেন্দ্রের মধ্যে ২ টি কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার চেষ্টা করা হয়েছিল। কেন্দ্রগুলোতে পুরুষের তুলনায় নারী ভোটারদের উপস্থিতি বেশি ছিল। বেলা সাড়ে ১২ টায় রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের মিঠাপুকুর কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।

এসময় তিনি জানান ভোটাররা নির্বিঘ্নে তাদের ভোট দিচ্ছেন। তিনি কেন্দ্রের পরিবেশ ও ভোটারের উপস্থিতি দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এসময় তাঁর সাথে ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জোহরা। তিনি আজকের পত্রিকা কে জানান ১৭২ টি কেন্দ্রের কোথাও কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার অভিযোগ নেই। সুন্দর পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে বলে জানান তিনি। জীবনপুর সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে হুইল চেয়ারে ভোট দিতে এসেছিলেন ফরহাদ হোসেন নামে একজন প্রতিবন্ধী। তিনি নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়েছেন বলে জানান।

আর এক প্রতিবন্ধী নুরুল ইসলাম ভোট দিয়েছেন মিঠাপুকুর কলেজ কেন্দ্রে। তিনি শিশু কন্যা ও স্ত্রী কে সাথে নিয়ে কেন্দ্রে এসেছিলেন। মিঠাপুকুর বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে কথা হয় মুক্তা রানী নামে একজন নতুন ভোটারের সাথে। তিনি জানান ১৫০ কিলোমিটার দুর থেকে ভোট দিতে এসেছেন। তিনি জানান প্রথম ভোট যাদের দিয়েছেন, তারা জয়ী হলে ভোট দেওয়া সার্থক হবে। একই কেন্দ্রে কথা হয় নারী ভোটার আল্পনা সরকারের সাথে।

তিনি উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের বাসিন্দা। তবে ভোট দিতে এসেছেন শশুড় বাড়ি জয়পুর হাট জেলা শহর থেকে। তৃতীয় লিঙ্গের সংরক্ষিত আসনের সদসয় প্রার্থী মারুফা আক্তার মিতুর সমর্থক একজন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি পরিবারের গৃহীনি ( নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বলেন হামার মিতু ম্যালা ভোটে জিতবে।উপজেলার কাফ্রিখাল ইউনিয়নের যাদবপুর মাদ্রাসা কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির কর্মী সমর্থকদের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। অপর ঘটনাটি ঘটে মির্জাপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে।

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে ব্যালটে সিল মারা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন জাতীয় পার্টি। এনিয়ে উত্তেজনা দেখা দিলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয় বলে জানিয়েছেন এএসপি মোঃ কামরুজ্জামান। ভাংনী ইউনিয়নের হুলাশুগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে শাওন ও রাকিবুল নামে দুই তরুন কে আটক করা হয়েছিল। এ ছাড়া আর কোন অপ্রীতিকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শান্তি পূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছিল।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ