MD Alim Uddin - (Sylhet)
প্রকাশ ২৯/০১/২০২২ ০৫:২৯এ এম

Pubji game: পাবজি খেলায় ব্যর্থ হয়ে পরিবারের সবাই কে হত্যা করল কিশোর

Pubji game: পাবজি খেলায় ব্যর্থ হয়ে পরিবারের সবাই কে হত্যা করল কিশোর
ad image
একটি পরিবারের চার সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যার রহস্য উদঘাটনের দাবি জানিয়েছে পাকিস্তানের পুলিশ। সপ্তাহখানেক আগে পাঞ্জাবের কাহনা অঞ্চলে নিজ বাড়িতে তিন সন্তানসহ এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে হত্যা করা হয়েছিল।

প্রথমে কূলকিনারা না পেলেও এখন কর্তৃপক্ষ বলছে, নিহত স্বাস্থ্যকর্মীর ১৪ বছর বয়সী কিশোর ছেলে জাইন আলী জনপ্রিয় পাবজি খেলায় আসক্ত ছিল। এতে সে এতটাই প্রভাবিত ছিল যে নিজের ভাই-বোন ও মাকেও হত্যা করতে দ্বিধা করেনি।

ডন অনলাইনের খবর বলছে, সেদিন এলডিএ চকের একটি বহুতল ভবনের ফ্ল্যাটে নাহিদ মুবারক (৪৫), তার ছেলে তাইমুর সুলতান (২০), কন্যা মাহনুর ফাতিমা (১৫) ও জান্নাতের (১০) মরদেহ দেখতে পায় পুলিশ।

এক জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, মা ও ভাইবোনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে জাইন আলী। সে পাবজিতে আসক্ত ছিল। অনলাইনে গেম খেলতে দিনের বেশিরভাগ সময়ই নিজের কক্ষে অবস্থান করতো এই কিশোর।

খেলায় সেদিনের টার্গেট অর্জন করতে না পেরে সে ক্ষিপ্ত হয়ে গিয়েছিল। একটানা চারঘণ্টা পাবজি খেলেও ব্যর্থ হতে হয়েছে তাকে। এতে সে আগ্রাসী হয়ে ওঠে—মেজাজ বিগড়ে যায়।পুলিশ বলছে, বালকটি তার বিচারবুদ্ধি হারিয়ে ফেলেছিল। পিস্তল নিয়ে সোজা চলে যায় মায়ের কক্ষে। সেখানে তিন সন্তান নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন ওই নারী। জাইন আলী প্রথমে মাকে, পরে অন্য ভাইবোনদের নির্বিচারে হত্যা করে। পিস্তলটি ছিল তার মায়ের কেনা।

গুলি শব্দে তার বড় ভাই কক্ষে ঢুকলে, তাকে গুলি করে জাইন আলী। ঘটনাস্থলেই সবাইকে হত্যা করে সে নিজের কক্ষে গিয়ে বিশ্রাম নিয়ে বাইরে বের হয়ে একটি নালায় পিস্তল ফেলে যায়।

পরে বাসায় গিয়ে নিজের কক্ষে ঘুমিয়ে পড়ে। সে এমন ভান ধরেছিল যে এ হত্যাযজ্ঞ সম্পর্কে তার কিছুই জানা নেই। যদিও তার জামায় রক্তের দাগ লেগেছিল।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ