সম্পাদনাঃ শামীম বখতিয়ার - (Dhaka)
প্রকাশ ২২/০১/২০২২ ১০:১২এ এম

Open column: শিক্ষা

Open column: শিক্ষা
ad image
আমাদের শিক্ষা আমাদের উন্নয়ন আমাদের প্রগতি ও আমাদের সংকোচন আমরা কি করছি আমরা কি পাচ্ছি আমরা কি পাইনি আর এই না পাওয়ার পেছনে কি কারন আছে যতক্ষণ পর্যন্ত সেই সত্য উদঘাটন করতে না পারবো ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা আমাদের মান উন্নয়ন সম্পর্কে বিন্দুমাত্র ধারণা রাখতে পারব না।

গুরুত্বহীন জেনারেল শিক্ষাব্যবস্থাকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে আজ আমরা টেকনিকেল শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে অনেক পিছিয়ে। আমরা টেকনিকেল বিষয়গুলোকে শিক্ষার ক্ষেত্রে পরীক্ষার রেজাল্ট ভালো করার জন্য পাসের মার্ক তুলি,

ধর্মীয় দিক ও মস্তিষ্ক গত ভাবে আমরা যখন টেকনিকেল শিক্ষাব্যবস্থাকে গুরুত্বহীন করে তুলি তখন জেনারেল শিক্ষা ব্যবস্থা ভাইভা বোর্ডে এসে সম্পূর্ণ failures এবং জ্ঞানশূন্য হয়ে যায় স্টুডেন্ট।

আমরা যদি বিজ্ঞানমনস্ক চিন্তাভাবনা সম্পূর্ণ শিক্ষাব্যবস্থাকে অগ্রসর করতে না পারি অথবা মানুষ হিসেবে বিজ্ঞানকে যদি অবজ্ঞা করে এগিয়ে যেতে থাকি তবে আমাদের দেশে, বিদেশি টেকনিশিয়ানদের হায়ার করা বাধ্যতামূলক হিসেবে দেখতে থাকব।

এই পরিস্থিতি ততক্ষণ পর্যন্ত চলতে থাকবে যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের দেশে বিজ্ঞানভিত্তিক টেকনিকেল শিক্ষাব্যবস্থাকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে তুলে তুলে না আনতে পারব।

চাকরির ক্ষেত্রে আমরা পৃথিবীর দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে আছি, শিক্ষার ক্ষেত্র স্থানগুলোও অনিশ্চিত ও অনুন্নত, ব্যবসার ক্ষেত্রেও তেমনি ধরা যায়। যে জাতি বিজ্ঞান শিক্ষাকে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্টের জন্য শুধু আঁকড়ে ধরবে তারা কোনদিনই ভবিষ্যতের দিকে আলোকিত মানুষ হয়ে পৃথিবী নিয়ন্ত্রণ করতে অসমর্থ হবে, অসফল হবে।

আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে নতুন করে ঢেলে সাজানোর এখনই সময় যদি এই অনুন্নত শিক্ষাব্যবস্থার নতুন করে আমল পরিবর্তন না ঘটে তবে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম অন্ধকার ভবিষ্যতের অতল গহবরে হারিয়ে যাবে।

আমরা যতটা ইংরেজিতে দুর্বল ততটা বিজ্ঞানেও পিছিয়ে আছি, এই পিছিয়ে থাকাটাই আমাদের দেশকে পিছিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বারংবার। এটা যদি দেশের জন্য কাজ করার চিন্তা ভাবনাপণ্য মহল বিবেচনা না করে তবে এর কোন উন্নতি সাধন হবে বলে মনে করি না।

তাই একটা জাতির মেরুদন্ড হল শিক্ষা কতটা উন্নত কতটা উচ্চমার্গের হবে তার ওপর ডিপেন্ড করে সে যাতে তাঁর দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে সামনের দিকে একটি স্বাধীন দেশে যতক্ষণ পর্যন্ত মুক্তচিন্তার শিক্ষাব্যবস্থার উন্মেষ না করবে ততক্ষণ পর্যন্ত সেই দেশ কোন দিক দিয়েই উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে কোনো চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারবে না।

অতএব ভূ-রাজনৈতিক ভক্তির ঝান্ডা তরুণসমাজকে গেঁথে না দিয়ে মুক্তপঠন পদ্ধতির উপর সর্বশক্তি প্রয়োগ করে এই সমাজ এ দেশ এদেশের স্বজাতিকে একটা উন্নত উন্নত চিন্তা ভাবনার উন্নত শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত সমাজ ব্যবস্থা যদি উপহার দেয়া যায় তাহলে এর চেয়ে ভালো কিছু আর কিছুই নয় আর অন্য কিছুও হতেও পারে না।

কুসংস্কার সামনে রেখে সংস্কার করা যায় না। যেভাবে দুর্নীতি না থামিয়ে দুর্নীতি বিরোধী আন্দোলন। যেভাবে ধর্ষণের আইন মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করে ধর্ষককে মুক্তি দেয়া। যেমন রাষ্ট্রপতি সকল ক্ষমতার উৎস হলেও প্রধানমন্ত্রী সর্বেসর্বা। যেমন আইন ব্যবস্থা বিচারব্যবস্থা উন্মুক্ত হলেও প্রধানমন্ত্রী যাকে বলবে তাকে ফাঁসি দিতে পারে। যেভাবে আইন তার গতিতে চলে আপনি যদি টাকার ঘ্রান বা বাতাস দেয়া যায় তাহলে আইনের সব নিয়মকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে সবকিছুকে উল্টে দেয়া যায়।

আমি আপনাদের মাঝে একজন ক্ষুদ্র মানব পৃথিবীর সব সৌন্দর্য আমার মধ্যে নেই কিন্তু সেসব কিছু

ধর্ম মানুষের স্বাধীনতার আকাশকে বন্ধ করে দেয়। ধর্ম মানুষকে একটা শৃংখলাবদ্ধ সমাজ উপহার দিতে গিয়ে তাকে বেঁধে ফেলে এমন ধর্ম কখনই সভ্য পৃথিবীর মানুষ গ্রহণ করবে না যে ধর্ম মানুষকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে তার দিকে টেনে নেয়ার জন্য উঠেপড়ে লাগবে। এমন যদি হয় তাহলে ধর্ম বেশি দিন টিকে থাকার পরও তাদের খুব কম সময়ের মধ্যেই তার বিরুদ্ধে ঘটবে বলে বিশ্বাস হয়।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ