Nazrul
প্রকাশ ২০/০১/২০২২ ০১:১৮পি এম

Actress Subah: নাসির ও ইলিয়াসের মধ্যে পার্থক্য জানালেন সুবাহ

Actress Subah: নাসির ও ইলিয়াসের মধ্যে পার্থক্য জানালেন সুবাহ
ad image
চার বছর আগের কথা। ২০১৮ সালে মডেল ও অভিনেত্রী সুবাহ শাহ হুমায়রার একটি ভিডিও তুমুল আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। যে ভিডিওতে তিনি জাতীয় দলের এক সময়কার নিয়মিত ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সঙ্গে নিজের সম্পর্কের ব্যাপারটি ফাঁস করেছিলেন।

নাসিরের আলোচিত সেই ‘সাবেক প্রেমিকা’-কে গেল বছরের ১ ডিসেম্বর পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে করেন তরুণ প্রজন্মের সুপরিচিত গায়ক ইলিয়াস হোসাইন। তবে মাস না পেরুতেই ভাঙনে রূপ নেয় তাদের সংসার। শুরু হয় কাদা ছোড়াছুড়ি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সরব সুবাহ। ব্যক্তিজীবনের নানান বিষয়ে ফেসবুকে লাইভ করতে দেখা গেছে তাকে। বিভিন্ন সময় স্ট্যাটাসের মাধ্যমে তুলে ধরেছেন নানান ঘটনার চিত্র। বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) এক স্ট্যাটাসে স্বামী ইলিয়াস ও সাবেক প্রেমিক নাসিরের মধ্যে পার্থক্য তুলে ধরেন এই অভিনেত্রী।

সুবাহর স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-
‘ইলিয়াস আর নাসিরের মধ্যে পার্থক্য কি জানেন?

ইলিয়াস : যে চৌদ্দটা বিয়ে করেছে। প্রত্যেকটা মেয়ের থেকে টাকা নিয়েছে। মেয়েদেরকে নিয়ে বিজনেস করে বিভিন্ন এমপি-মন্ত্রী, বিজনেসম্যানের কাছে মাইয়া মানুষ সাপ্লাই দেয়। এককথায় সে একটা দালাল ধান্দাবাজ। যার কাছে বিয়েটাই হলো পুতুল খেলা বিজনেস।

এখন সবার কাছে ধরা খাইছে। আমি দুইটা মামলা দিয়েছি ওর নামে। তাই আমাকে পাবলিকলি গালাগাল, চরিত্র নিয়ে কথা বলে। অথচ, নিজের চরিত্রের কোনো ঠিক নাই। আমাকে নিয়ে বাজে কথা বলে সে নিজেকে খুবই বড় ভাবে হা হা হা।

মেয়ে মানুষকে সম্মান করে না অথচ বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙায় আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে সারাদিন পোস্ট করে ফেসবুকে আর কাপুরুষের মতো পালায় পালায় ঘোরে। আমি যদি কখনো বুঝতে পারতাম বিয়ের আগে ইলিয়াস এত ফালতু থার্ডক্লাস মাইয়া বাজ মাইয়া মানুষের দালাল, মারা যাইতাম বিষ খেয়ে তাও কোনোদিন ইলিয়াসের মতো ফালতু ছেলেকে কবুল পরে বিয়ে করতাম না।

নাসির: অনেকগুলো প্রেম করলেও বিয়ে একটাই করেছে আর যতদূর মনে পড়ে কখনো কোনো মেয়ের থেকে টাকা-পয়সা নিয়ে চলে নাই। এটলিস্ট নাসির লোভী গোল্ড ডিগার না, আমার জানামতে। অনেক খারাপ ছেলে আছে বিয়ের পরে বদলে যায় চোখের সামনে নাসিরের পরিবর্তন দেখেছি সে অনেক বদলে গেছে। সংসার নিয়ে, ক্যারিয়ার নিয়ে এখন ব্যস্ত। আর মানুষ মাত্রই পরিবর্তনশীল।

বিয়ে একটাই করেছে, সে মেয়েটা যেমনই হোক তাকে নিয়ে কোর্টকাচারিতে ঘুরছে অথচ তার হাতটা ছেড়ে যায়নি। ছাড়ার জন্য একটা উসিলাই যথেষ্ট, আর ধরে রাখার জন্য ভালোবাসা ও রেসপেক্ট। নাসিরকে আমি এখন অনেক বেশি রেসপেক্ট করি, কারণ সে তার বউকে রেসপেক্ট করে। ভালো থাকুক ওরা ওদের ভালোবাসা নিয়ে।

নাসিরের নখের যোগ্যতাও ইলিয়াস রাখে না। আর সংসার করার ইচ্ছা থাকলে মামলা দিতাম না। এটলিস্ট এখন আগের ২-৩টা বউয়ের মতো ইলিয়াসের অন্যায় সহ্য করে পায়ে ধরে বসে থাকতাম। সবশেষ দেখে ছাড়ব, এ জন্যই মামলা দিয়েছি। আরও কিছু করব বাট ওকে আমি শিক্ষা দিবো।’

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ