আসাদুজ্জামান শেখ (সোবহান) - (Bagerhat)
প্রকাশ ১৯/০১/২০২২ ০৩:২৮পি এম

বাগেরহাটে জোর পুর্বক জমি দখলের পায়তারা, এলাকায় সহিংসতা ও হামলার আশংকা

বাগেরহাটে জোর পুর্বক জমি দখলের পায়তারা, এলাকায় সহিংসতা ও হামলার আশংকা
ad image
বাগেরহাট শহরতলীর নাসিমা বেগম নামের এক সরকারী চাকুরী জীবির স্ত্রীর জমি দখলের পায়তারা চালাচ্ছে প্রতিপক্ষরা। ঘটনার পর থেকে ভূক্তভোগি নাসিমা বেগম বাগেরহাট অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।যার নং ১০৩/২২ এরপর থেকে ওই জমি দখলের হামলার আশংকায় জীবনের নিরাপত্তা হীনতায় দিনপর করছে ওই পরিবারটি।

ভূক্তোভোগি নাসিমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, বাগেরহাট সদর উপজেলা ১নং কাড়াপাড়া ইউনিয়নের কাঠাল গ্রামে পিতা ও মাতার গত ২৭/০২/২০০৯ তারিখ ৫৬৩ নং হেবা দলিল মুলে প্রাপ্ত সূত্রে পাওয়া ,১৭০ একর শতক জমি রয়েছে। যা দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে সে ভোগ দখল করে আসছে। কিন্তু সম্প্রতি তার বোন কামরুন্নাহার অবৈধ ভাবে গোপনে একই এলাকার সাফিয়া বেগমের কাছে কবলা মূলে তার অংশ থেকে ০১৫০ একর বিক্রি করে দেয়।আমাদের পত্রিক সম্পত্তি যখন ভাগাভাগি হয়, তখন আমি এই ০১৭০ একর শতক জায়গা ডোবা হিসাবে ভোগ দখল করে আসচ্ছি। এবং দীর্ঘ দিন সেখানে গবাদী পশুর ময়লা ও আবর্জনা ডেলে উচু করি ।আমার বোন কামরুন্নাহার সম পরিমান জায়গা অন্য পাশ থেকে পেয়ে ভোগ দখল করে আসছে। কিন্তু প্রতিবেশি সাফিয়ার কু-পরামর্শে আমার বোন তার জায়গা বিক্রি করে আমার ভোগ দখলীয় জায়গার মধ্যে দখল নেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে।

আমি দাতা আমার বোন ও গ্রহিতা সাফিয়ার কাছে গেলে আমার সাথে চরম র্দূব্যবহার করে তাদের বাড়ী থেকে বের করে দেয়। কোনো উপায় না পেয়ে আমি প্রতিপক্ষদের বিরুদ্বে আদালতের আশ্রয় নিয়েছি।এদিকে প্রতিপক্ষ সাফিয়া ও তার পুত্র বাদশা আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করে আমার ভোগ দখলীয় জায়গা দখলে নেওয়ার পায়তারা চালাচ্ছে।এবং তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী আমি ও আমার পরিবারকে জীবন নাশের হুমকিসহ এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিচ্ছে। এরপর থেকে আমি ন্যায় বিচারের আশায় সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে ধর্ণা দিয়েও কোন প্রতিকার পায়নি।

স্থানীয় ইলিয়াছ শেখ,বাচ্চু মোল্লা,মোশারেফ শেখ জানান, আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখছি নাসিমা বেগম এই জায়গা ভোগ দখল করে আসচ্ছে। কিন্তু সম্প্রতি সম্পূর্ণ বে-আইনি ভাবে তার বোন এই জমিটি গোপনে সাফিয়ার কাছে বিক্রি করেছে এবং সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে নাসিমার দখলীয় অংশ থেকে দখল নেওয়ার পায়তারা করছে।এরপর থেকে প্রভাবশালী সাফিয়া গং ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী ওই জায়গা দখলের পায়তারা চালাচ্ছে।যে কোন মুহুর্তে এই জমি নিয়ে হামলা-মারপিটের ঘটনার আশংকা রয়েছে এবং প্রতিপক্ষরা নিজেরা কোন নাশকতা ঘটিয়ে মামলা দেওয়ার সড়যন্ত্র করছে বলে নাসিমার স্বামী এনাম হোসেন দাবী করেন।

এ বিষয়ে নাসিমার বোন কামরুন্নাহার সকল অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন,বাপের সম্পত্তি যেখানেই রয়েছে, সেখানে আমার অংশ রয়েছে। তাই আমি আমার অংশ বিক্রি করে দিয়েছি।তবে সন্ত্রাসীর কোনো ঘটনা ঘটেনি। এ বিষয়ে সাফিয়া বলেন,আমি কারও জায়গা জোর করে দখল করি নাই বা কাউকে জীবন নাশের হুমকীও দেয়নি। আমি তার বোন এর কাছ থেকে জায়গা কিনেছি।নাসিমার স্বামী বাগেরহাট জজ কোটে চাকুরীজীবী এনাম হোসেন জানান,যেহেতু বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলা চলোমান রয়েছে। সে কারনে বিষয়টি এখন আদালতের মাধ্যমে নিস্পত্তি হবে।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ