MAHBUBUR RAHMAN OVI
প্রকাশ ১৯/০১/২০২২ ০৩:২৯পি এম

বরগুনা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার জিম্মায় থানা থেকে ছাড়া পেল ঘুষ গ্রহণ অভিযোগে পুলিশের হাতে আটক অফিস-সহ

বরগুনা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার জিম্মায় থানা থেকে ছাড়া পেল  ঘুষ গ্রহণ অভিযোগে পুলিশের হাতে আটক অফিস-সহ
ad image
বরগুনা জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের জিম্মায় অবশেষে ১দিন পর থানা থেকে ছাড়া পেল ল্যাকটেটিং ভাতা কর্মসূচীর ভাতা পাইয়ে দিতে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে পুলিশের হাতে আটক জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের অফিস-সহকারি নাজমুল হাসান।

এর পূর্বে (১৮ জানুয়ারী ) মঙ্গলবার দুপুরে বরগুনা শহরের মীর গোলাম সরোয়ার সড়ক (গার্মেন্টস পট্রি মোড়ে ) জনরোষের মুখ থেকে অফিস-সহকারি নাজমুল হাসানকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ । এ সময় ভ‚ক্তভোগী মহিলারা তার বিচারের দাবীতে থানার সামনে অবস্থান নেয়। ল্যাকটেটিং ভাতা কর্মসূচীর ভাতা পাইয়ে দিতে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে তাকে ওই দিন গ্রেফতার করা হয়।

ভ‚ক্তভোগী পরিবারের সদস্য শফিকুর রহমান জানান ল্যাকটেটিং ভাতা কর্মসূচীর ভাতা পাইয়ে দেয়ার (অফিস খরচের) কথা বলো জনৈক বিথী নামের এক মহিলাসহ শতাধিক মহিলার কাছে থেকে ৭ (সাত) হাজার করে প্রায় ১২ লাখ ৬৭ হাজার টাকা ঘুষ নেয় জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের অফিস-সহকারি নাজমুল হাসান। ঘুষ নেয়ার পরেও অনেকের নাম ভাতার তালিকায় না থাকায় নাজমুলের কাছে ওই ঘুষের টাকা ফেরৎ চায় ভ‚ক্তোভোগী পরিবার গুলো। ঘুষের টাকা ফিরিয়ে দিতে অস্বীকার করলে মঙ্গলবার দুপুরে শহরের মীর গোলাম সরোয়ার সড়ক (গার্মেন্টস পট্রি মোড়ে ) ওই ভূক্তভোগী পরিবারের মহিলাদের তোপের মুখে পড়ে নাজমুল ।

পরে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরুল ইসলামের হস্তক্ষেপে তাকে জনরোষ থেকে রক্ষা করেতে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। তিনি আরও জানান, পুলিশ সুপার এ ঘটনায় মামলা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভুক্তভোগী বিথী প্রতিবেদকে জানান, তার বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরী হয়েছে। তবে আমি তা একনো হাতে পাইনি । শুনেছি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের কর্মকর্মাদের জিম্মায় তাকে (নাজমুল হাসান) কে থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, এর পূর্বে আমাদের অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ । আমরা ভ‚ক্তভোগী মহিলার থানায় মামলা করতে চেয়ে ছিলাম । পুলিশ( জিডি ) সাধারণ ডায়েরী করেছে পুলিশ।

বরগুনা থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম তারিকুল ইসলাম প্রতিবেদকে মুঠোফোনে জানান ,বরগুনা জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের অফিস-সহকারি নাজমুল হাসান কে দুদুকে মামলা করবে এই শর্তে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের কর্মকর্তাদের জিম্মায় থানা থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এর পূর্বে তিনি আরও জানিয়ে ছিলেন, যে তার বিরুদ্ধে দুগ্ধপান কারী শিশুদের ১৮০ জন মায়ের কাছ থেকে ৭ হাজার টাকা করে ঘুষ নেওয়ায় তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারী) দুপুর তাকে শহরের (গার্মেন্টস পট্রি মোড় ) থেকে আটক করা হয়।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ