Ali Ashraf - (Rajshahi)
প্রকাশ ১০/১১/২০২১ ০৫:৩৩এ এম

Documentary: ‘জোহা হল কথা কয়’ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র

Documentary: ‘জোহা হল কথা কয়’ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রামাণ্যচিত্র
ad image
সারা দেশে চলছে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বিভিন্ন অনুষ্ঠান। মুক্তিযুদ্ধের প্রামাণ্যচিত্র তুলে ধরতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগ ও জোহা হলের সহযোগিতায় প্রামাণ্যচিত্র ‘জোহা হল কথা কয়’।

’৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজশাহী অঞ্চলসহ উত্তরবঙ্গকে পাকিস্থানীরা হাতের মুঠোয় নিয়ে আসতে জোহা হলকে প্রধান করে কার্যক্রম চালু করেন। যেখানে সাধারণ মানুষদের তুলে এনে অত্যাচার, নির্যাতন করে থাকে। হল এর বেশ কিছু রুমে টরসাল সেল তৈরি করে। পাশেই বাঙালিদের গণ কবর দিয়ে থাকে।

বাংলাদেশের প্রথম শহিদ বুদ্ধিজীবী শহিদ ড. শামসুজ্জোহা স্যারকে ফিচার করে বাঙালি সাময়িকীর কার্যক্রম শুরু হয়। '৬৯ এর ১৭ই ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে শিক্ষকদের এক প্রতিবাদ সভায় বক্তৃতাকালে ড. জোহা নিজের জামায় লেগে থাকা রক্ত দেখিয়ে বলেন “আজ আমি ছাত্রদের রক্তে রঞ্জিত। এর পর কোন গুলি হলে তা ছাত্রকে না লেগে যেন আমার গায়ে লাগে”।

যার আত্মত্যাগ মুল খোরাক হিসেবে সাধারণ শিক্ষার্থী, সাধারণ জনগনদের মনে স্পৃহা প্রদান করে। তার ছাত্রদের জন্য আত্মত্যাগ আজও সাধারণ মানুষের জন্য এক অনন্য অনুভুতি হিসবে কাজ করে। যার ফলে মুক্তিযুদ্ধের জন্য স্পৃহা সৃষ্টি করে।

৩০ লক্ষ শহীদের কথা, নির্মমভাবে নির্যাতনের শিকার হওয়া পরিবারজনের চিত্র ফুটে ওঠে আজকের অনুষ্ঠানে। বাকরুদ্ধ হয়ে যায় গোটা হল এর দর্শকসহ উপস্থিত সকলে। সরকারের ৬৪ জেলায় এরকম চিত্র সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলে ধরার চিন্তা আসলেই উত্তম চিন্তার মধ্যে একটি। যা দেশের মানুষের জন্য এক অনন্য চিন্তার সৃষ্টিতে ভাবতে সাহায্য করবে।

‘জোহা হল কথা কয়’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.খ.ম মোজাম্মেল হক, মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরি মো. জাকারিয়া, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. সুলতানুল ইসলাম টিপু ও ছাত্র-উপদেষ্টা মো. তারেক নুর ও মলয় ভৌমিকসহ আরও অনেক জ্ঞাণীজন।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ