Rakib Monasib
প্রকাশ ১৯/১০/২০২১ ১২:৪৮পি এম

Weight loss & Diet plan: আয়ুর্বেদ পদ্ধতিতে সহজেই কমিয়ে ফেলুন শরীরের ওজন

Weight loss & Diet plan: আয়ুর্বেদ পদ্ধতিতে সহজেই কমিয়ে ফেলুন শরীরের ওজন
বাড়তি ওজন নিয়ে মানুষের চিন্তার শেষ নেই। এছাড়া ফিট থাকতে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইচ্ছেমতো কসরত করেন অনেকে। এত কিছু করেও যখন বাড়তি মেদ কমছে না তখন মুশকিল আসান হয়ে দেখা দিয়েছে আয়ুর্বেদ। আর আয়ুর্বেদ অনুযায়ী আটখানা নিয়ম মানলেই আমাদের আর ওজন কমানো নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

সব চেয়ে মজার কথা হলো এ নিয়মগুলো মানতে গিয়ে আমাদের কোনো উদ্ভট ডায়েট অনুসরণ করতে হবে না বা পেটে খিল মেরে বসেও থাকতে হবে না। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী যে আটখানা নিয়ম মানতে বলা হয়েছে সেগুলো হলো-

উষ্ণ পানিতে হাল্কা চুমুক - উল্টোপাল্টা খাবার খেলে এবং দূষণের জন্য শরীরে এক প্রকার টক্সিন বা বিষ তৈরি হয় ৷ যা ওজন বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ। ঠান্ডার পরিবর্তে গরম পানি পান করলে এ টক্সিন শরীর থেকে বেরিয়ে যায়।

পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুম - রাত দশটা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ঘুম হলো আদর্শ। অন্তত আয়ুর্বেদ তাই বলে। শরীরের প্রয়োজন অনুযায়ী ঘুম না হলে শারীরিক ও মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

রাতের খাবার হতে হবে হালকা - রাতে হালকা খেলে সেটা শরীরের পক্ষে হজম করা সহজ হয় এবং শরীরের যে স্বাভাবিক বিষমুক্তিকরণ প্রক্রিয়া চলে সেটা ভালোভাবে সম্পন্ন হয়। আয়ুর্বেদ বলে রাতের খাবার সন্ধ্যা ৭টার আগে শেষ করে নিতে। এতে খাবার তাড়াতাড়ি হজম হয়।


প্রতি দিন তিনবার খেতে হবে - খাবার হজম করার যে প্রক্রিয়া শরীর সম্পন্ন করে তার ফাঁকে ফাঁকে শরীরের বিশ্রামের প্রয়োজন হয়। তাই বেশি মাত্রায় খেলে শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ে। দিনে তিনবার খেলে এবং মাঝখানে অন্য কিছু না খেলে এ প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়।


খাওয়ার পর হাঁটাহাঁটি করতে হবে - শুধু আয়ুর্বেদ কেন, যে কোনো শাস্ত্রই বলে, শারীরিকভাবে সক্ষম থাকা খুব দরকার। যদি জিমে যাওয়া বা এক্সারসাইজ করা সম্ভব না হয় তাহলে প্রতি মিলের পর ১০ থেকে ২০ মিনিট হাঁটলে খাবার সহজে হজম হবে।


খেতে হবে মৌসুমি ফল ও সবজি - যে ঋতুতে যে ফল বা সবজি পাওয়া যায় সেটা খেতে নির্দেশ দেওয়া আছে আয়ুর্বেদে। কারণ গ্রীষ্মের ফল ও সবজি শরীর ঠান্ডা রাখে এবং শীতের ফল, সবজি ও বাদাম শরীর উষ্ণ রাখে।


খাবারের ছয় রকমের স্বাদ - আয়ুর্বেদ খাবারকে ছয় ভাগে ভাগ করে। যেমন মিষ্টি, টক, ঝাঁঝালো, চটপটে, নোনতা ও তেঁতো। খাবার সময় এ ছয়টি স্বাদই উপস্থিত থাকতে হবে। বেশি নুন বা চিনি শরীরের পক্ষে ভালো নয়।


খাবারে ভেষজ উপাদান যোগ করতে হবে - হলুদ, আদা, অশ্বগন্ধা, গুগগুল, ত্রিফলা ও দারচিনি এগুলো খাবারে থাকলে ওজন তাড়াতাড়ি কমে যায়।

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ

*PLEASE INSERT THIS PART OF THE TAG TO THE BODY SECTION OF THE PAGE WHERE YOU'D LIKE TO SEE ADS*